কমলাপুরে দীর্ঘ লাইন, টিকিট পেয়েই স্বস্তি

post_image

কমলাপুরে দীর্ঘ লাইন

ঈদুল আজহা উপলক্ষে টানা তৃতীয় দিনের মতো ঢাকার কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে সকাল থেকে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। রোববার সকাল ৮টা থেকে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে অগ্রিম এ টিকিট বিক্রি শুরু হয়। আজ ঈদযাত্রা উপলক্ষে ৭ জুলাইয়ের টিকিট বিক্রি হচ্ছে।

রোববার রাজধানীর কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে দেখা গেছে, সকাল থেকেই টিকিট প্রত্যাশীদের লম্বা লাইন। এদের অনেকেই রাত থেকেই লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করছেন।

সকাল ৮টায় টিকিট দেওয়া শুরু হলে অনেকেই টিকিট পেয়ে স্বস্তির নিঃশ্বাস ছেড়েছেন। কুষ্টিয়ার বাবু নামের এক টিকিট প্রত্যাশী জানান, স্টেশনে রাত ৩টায় এসে লাইনে দাঁড়িয়েছেন। অনেক কষ্টের পর টিকিট হাতে পেয়ে ভালো লাগছে। পরিবারের সদস্যদের নিয়ে স্বস্তিতেই ঈদে বাড়ি যেতে পারবেন বলে আশা করছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, এবার ঈদে ছয় জোড়া বিশেষ ট্রেন পরিচালনা করা হচ্ছে। গতবারের মত এবারও ৫০ শতাংশ টিকিট কাউন্টারে এবং বাকি ৫০ শতাংশ টিকিট মিলছে অনলাইনে।

কাউন্টার কর্তৃপক্ষ জানায়, ৩ জুলাই ৭ জুলাইয়ের, ৪ জুলাই ৮ জুলাইয়ের এবং ৫ জুলাই ৯ জুলাইয়ের টিকিট বিক্রি হবে।

স্টেশন সূত্রে জানা গেছে, প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত কাউন্টারে এবং অনলাইনে টিকিট বিক্রি করা হবে। টিকিট ক্রয়ের জন্য যাত্রীদের জাতীয় পরিচয়পত্র বা জন্ম নিবন্ধনের ফটোকপি দেখিয়ে টিকিট কাটতে হবে।

এদিকে রেল সূত্রে জানা গেছে, ঢাকার কমলাপুর স্টেশনে সমগ্র উত্তরাঞ্চলগামী আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট, কমলাপুর শহরতলী প্ল্যাটফর্ম থেকে রাজশাহী ও খুলনাগামী ট্রেনের টিকিট পাওয়া যাচ্ছে।

এবারই প্রথম ঈদুল আজহা উপলক্ষে পোশাক শ্রমিকদের জন্য গাজীপুরের জয়দেবপুর থেকে বিশেষ ট্রেন পরিচালনা করা হবে। ‘বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম ঈদ স্পেশাল ট্রেন’ নামের এ ট্রেন গাজীপুরের জয়দেবপুর থেকে পঞ্চগড় পর্যন্ত চলাচল করবে।

এদিকে ঈদের ফেরত টিকিট বিক্রি শুরু হবে ৭ জুলাই। ঈদ শেষে ফিরতি ট্রেনের ক্ষেত্রে ১১ জুলাইয়ের টিকিট পাওয়া যাবে ৭ জুলাই, ১২ জুলাইয়ের টিকিট ৮ জুলাই, ১৩ জুলাইয়ের টিকিট ৯ জুলাই এবং ১৪ ও ১৫ জুলাইয়ের টিকিট ১১ জুলাই পাওয়া যাবে।

সকল খবর

সকল খবর পড়ুন